প্রচ্ছদ >> প্রযুক্তি

টাকা গুনার মেশিনই আসল টাকা চোর! (ভিডিও)

তথ্য প্রযুক্তি ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: এখন মানুষের হাতে সময় কম। আরও কম সময়ে মানুষ বেশি কাজ করতে চায়। সেজন্য যত ধরনের প্রযুক্তি সহায়তা দরকার সবগুলোই সে ব্যবহার করে। তাতে কাজও হয়। কিন্তু কোনো কোনো সময় তা হিতে বিপরীত হয়ে দাঁড়ায়। হাতে টাকা গুনলে ভুল হতে পারে। অনেকের বিশ্বাস টাকা গুনায় মেশিনই নিরাপদ। কিন্তু সেই নিরাপত্তা সব ক্ষেত্রে না। টাকার মেশিনই টাকা চুরি করে! ঘটনা একদম সত্যি।

টাকা গুনার মেশিনটিই টাকা চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে। প্রথম প্রথম শুধু ব্যাংকে এই যন্ত্রের দেখা মিলত। এখন বিভিন্ন দোকানেও দেখা মিলছে এই মেশিনের। বিশেষত যেসব দোকানে মোটা অঙ্কের লেনদেনের ব্যাপার থাকে, সেখানে তো আকছার দেখা যায় এই যন্ত্র।

টাকা গোনার কাজটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। একাজে সামান্য ভুলচুক হলে দিতে হতে পারে আর্থিক খেসারত। সেই কারণেই আজকাল মোটা অঙ্কের আর্থিক লেনদেনের ক্ষেত্রে অনেকে ভরসা করেন টাকা গোণার মেশিনের উপর। কিন্তু জানেন কি, এই মেশিনও আসলে ততটা নির্ভরযোগ্য নয়?

কারেন্সি কাউন্টিং মেশিন এমনিতে যথেষ্ট সুবিধাজনক। অতি দ্রুত মোটা মোটা টাকার বাণ্ডিল গুনে ফেলতে পারে এই যন্ত্র। ফলে যত্ন ও মনোযোগ সহকারে টাকা গোনার ঝামেলা থেকে মেলে মুক্তি। তাছাড়া অনেকেরই ধারণা থাকে, টাকা গোনার কাজে মানুষের ভুল হতে পারে, কিন্তু যন্ত্রের নিশ্চয়ই ভুল হবে না। সেই কারণে যন্ত্রের উপরে তাঁদের ভরসাও থাকে বেশি। দিনে দিনে এই সব কারণে এই যন্ত্রের জনপ্রিয়তাও বাড়ছে। প্রথম প্রথম শুধু ব্যাংকে এই যন্ত্রের দেখা মিলত। এখন বিভিন্ন দোকানেও দেখা মিলছে এই মেশিনের। বিশেষত যেসব দোকানে মোটা অঙ্কের লেনদেনের ব্যাপার থাকে, সেখানে তো আকছার দেখা যায় এই যন্ত্র। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সম্প্রতি এক ধরনের চাইনিজ টাকা গোনার যন্ত্র এসেছে বাজারে। এই যন্ত্রের বিশেষত্ব হল, এই যন্ত্র টাকা গোনার সময় এক বিশেষ কায়দায় একগুচ্ছ টাকার মধ্যে থেকে কিছু টাকা লুকিয়ে ফেলে যন্ত্রের ভিতরে থাকা একটা গুপ্ত প্রকোষ্ঠের মধ্যে। তার ফলে কী হয়?

ধরুন, কোথাও আপনাকে ১০ হাজার টাকা দিতে হবে। আপনি গুনে গুনে ১০০ টাকার ১০০টি নোট দিলেন। যিনি টাকাটা নিলেন, তিনি টাকার বাণ্ডিলটি নিয়ে বসিয়ে দিলেন টাকা গোণার মেশিনে। মেশিনের ডিসপ্লে বোর্ডে সংখ্যা ভেসে উঠল ৯৭। আপনি ভাবলেন, আপনার গুনতে কোথাও ভুল হয়েছিল। কাজেই আপনি পকেট থেকে আরও ৩ টি ১০০ টাকার নোট বের করে দিলেন। কিন্তু যেটা আপনি জানতে পারলেন না তা হল, আপনি কিন্তু প্রথমবারে ১০০ টি নোটই দিয়েছিলেন। গোনার সময় তা থেকে ৩টি নোট মেশিনটি লুকিয়ে ফেলেছে নিজের ভিতরে। আর আপনি দিয়েছেন অতিরিক্ত ৩টি ১০০ টাকার নোট। ফলে যিনি টাকাটা গুণছিলেন তাঁর পকেটে আপনার অলক্ষ্যে ৩০০ টাকা ঢুকে গেল।

কিন্তু এই প্রতারণা ঠেকাবেন কীভাবে? বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সবচেয়ে ভাল হল, টাকা গোণার মেশিনকে এড়িয়ে চলা। ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ডে টাকা দিলে সবকিছুরই একটা লিখিত হিসেব থাকে। ফলে কার্ডে পেমেন্ট করা সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য। আর যদি নগদ টাকাতেই পেমেন্ট করতে হয়, তাহলে যিনি টাকা নিচ্ছেন, তাঁকে অনুরোধ করুন, তিনি যেন আপনার সামনে টাকাটা গুনে নেন।

নিচের লিঙ্কে দেখু‌ন ভিডিও

FacebookTwitterDiggStumbleuponRedditLinkedinPinterest
Pin It

 

This Category Latest news